বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১২ মে ২০১৯

বিনা উপকেন্দ্র, সুনামগঞ্জ

 

 

ছবি

 .

ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার নাম ও পদবী

 মাজহারম্নল ইসলাম

বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা

মোবাইল নম্বর

মোবাইলঃ +৮৮০১৭১৭৪১৮৬৫৬

ই-মেইল

m.islambau03@gmail.com

অবস্থান

বিনা উপকেন্দ্র বুড়িস্থল, সুনামগঞ্জ

পরিচিতি

বাংলাদেশ পরমানু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিনা) এর ১৩ টি উপকেন্দ্রর মধ্যে একটি উপকেন্দ্র সুনামগঞ্জ সদর এ অবস্থিত যা বিনা উপকেন্দ্র সুনামগঞ্জ নামে পরিচিত ।উপকেন্দ্রটি ২০১৩ সালে স্থাপিত ।এটি সুনামগঞ্জ ০৩ কি.মি. পূর্বে পৌরসভার শেষ প্রান্তে অবস্থিত । উপকেন্দ্রটি ৮ একর জায়গা জুড়ে অফিস, মাঠ, আবাসিক এলাকা নিয়ে গড়ে উঠেছে ।

কার্যক্রম

১. সিলেট অঞ্চল তথা হাওর এলাকার জন্য স্বল্প জীবনকাল ও ঠান্ডা সহনশীল উচ্চ ফলনশীল বোরো ধানের জাত উদ্ভাবনের লক্ষ্যে বিনা সদর দপ্তর কর্তৃক প্রদত্ত পরীক্ষণ বা ট্রায়াল সম্পাদন করা।

২. প্রতিকূল পরিবেশ উপযোগী (খরা, বন্যা এবং তাপমাত্রা), স্বল্প মেয়াদি, স্বল্প উপকরণ নির্ভর ফসলের নতুন নতুন জাত ও প্রযুক্তি উদ্ভাবনের লক্ষ্যে বিনা সদর দপ্তর কর্তৃক প্রদত্ত পরীক্ষণ বা ট্যায়াল এবং উপকেন্দ্রের নিজস্ব পরীক্ষণ বা ট্যায়াল সম্পাদন করা ।

৩. বিভিন্ন ফসলের আধুনিক চাষাবাদ প্রযুক্তি উদ্ভাবন ও উন্নয়ন।

৪.বিভিন্ন ফসলের রোগ ও পোকামাকড় দমনের কার্যকরি ব্যবস্থা গ্রহণ।

৫. মাটির স্বাস্থ্য রক্ষা করে ফসল উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে গবেষণা করা।

৬. আধুনিক শস্যবিন্যাস উদ্ভাবন করে কৃষকদের আর্থিক অবস্থার উন্নয়ন।

৭. মানঘোষিত বীজ উৎপাদন, সংরক্ষণ ও বিতরণ।

৮. বিনা উদ্ভাবিত জাত ও প্রযুক্তি সমূহের সম্প্রসারণ ও জনপ্রিয় করার লক্ষ্যে প্রদর্শনী প্রদান।

৯.বিনা উদ্ভাবিত জাত ও প্রযুক্তি  সম্প্রসারণ ও জনপ্রিয় করার লক্ষ্যে  মাঠদিবস আয়োজন করা।

১০.বিনা উদ্ভাবিত জাত ও প্রযুক্তিসমূহের লিফলেট ও বুকলেট বিতরণ।

১১. প্রযুক্তি হস্তান্তর ও সম্প্রসারণেরে লক্ষ্যে  ডিএই, বিএডিসি  এবং এনজিও  এর বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের প্রশিক্ষণ দেয়া ও আঞ্চলিক সম্যাসা ভিত্তিক কর্মশালার আয়োজন করা।

১২.বিনা উদ্ভাবিত জাতসমূহের আধুনিক উৎপাদন কলাকৌশল বিষয়ে কৃষক প্রশিক্ষণ দেয়া।

১৩. কৃষি বিষয়ে ই-তথ্য সেবা প্রদান।

১৪. প্রশাসনিক ও আর্থিক ব্যবস্থাপনা বিষয়ক কার্যাবলি সম্পাদন করা ।

১৫. স্থানীয় প্রতিষ্ঠানের সাথে গবেষণা সংযোগ স্থাপন।

১৬.কৃষি বিষয়ক বিভিন্ন সভা, সেমিনার ও মেলায় অংশ গ্রহণ করা।

জনবল

 

ম্যাপ


Share with :

Facebook Facebook